বাংলাদেশী স্মার্টফোন ব্র্যান্ড হিসেবে ওয়ালটন ও সিম্ফনি সবচেয়ে বেশি পরিচিত। গতকাল রিলিজ হলো ওয়ালটনের নতুন একটি লো বাজেট ডিভাইস Walton Primo GH9 এবং এর কিছুদিন আগেই সিম্ফনি রিলিজ করেছিলো Symphony i99। ডিভাইসদুটোর দাম বেশ কাছাকাছি, যথাক্রমে ৬৮০০(-১) টাকা ও ৭০০০(-১০) টাকা, স্পেকের ক্ষেত্রেও তফাৎ খুব বেশি নয়। চলুন কম্পেয়ার করে দেখা যাক কোনটি এগিয়ে থাকে।

কম্পারিজন শুরুর আগে জানিয়ে রাখি, ডিভাইসদুটোর কোনটিই আমি ব্যবহার করিনি। কনফিগারেশন, অফিসিয়াল তথ্য ও ইউজার ফীডব্যাকের ওপর ভিত্তি করে কম্পারিজন করা। কাজেই রিয়েল লাইফ এক্সপেরিয়েন্স আমার কথার সাথে পুরোপুরি না-ও মিলতে পারে।

আরো দেখুন: Symphony i99 বনাম Itel Vision 1

এক্সটেরিয়র ও ডিসপ্লে

অল্প দামের মধ্যে বড় ডিসপ্লে অফার করছে i99 ও GH9। দুটো ডিভাইসেই থাকছে 6.1″ HD+ (1560*720) IPS প্যানেল, যেখানে INCELL টেকনোলজি ব্যবহার করা হয়েছে। ডিসপ্লের ওপরে থাকছে ছোট্ট একটি U শেপ নচ। চিন ও বেজেল এরিয়া বাজেট অনুযায়ী Symphony i99-এ ঠিকঠাকই আছে, তবে Walton Primo GH9 টপ বেজেল ও চিন এরিয়া আরো ন্যারো করেছে, যা এই বাজেটে আকর্ষণীয়।

এগুলো লো বাজেট ফোন, তাই ফোনদুটোর বিল্ড ম্যাটেরিয়াল সিম্পলি প্লাস্টিক, দামি হলে হয়ত আদর করে বলতাম পলিকার্বনেট। ডিজাইনের দিক দিয়ে GH9 ভালোই লেগেছে, তবে আমার চোখে i99 বেশি সুন্দর। বিশেষ করে i99-এর মিনিমালিস্টিক ক্যামেরা কাটআউট ভালো লেগেছে। পাওয়া যাচ্ছে চারটি করে রঙে। i99-এ গ্র্যাডিয়েন্ট কালারিং থাকছে। Caribbean Blue, Amazon Green, Irish Purple, Persian Blue। GH9-এ গ্র্যাডিয়েন্ট না থাকলেও কালারগুলো ভালোই লেগেছে Black, Sky Blue, Ocean Green ও Deep Blue।

GH9-এর একটি এডভান্টেজ হলো এর স্পিকার থাকছে নিচের দিকে যেটা সাধারণত প্রিফারেবল। i99-এ রেয়ারে থাকায় ফ্ল্যাট সার্ফেসে রাখলে সাউন্ড কিছুটা ব্লক হওয়ার চান্স থাকে। দুটো ফোনেরই ব্যাকপার্ট রিমুভেবল। দুটো ন্যানো সিম স্লটের সাথে ডেডিকেটেড এসডি কার্ড স্লট থাকছে। GH9 ও i99 এর ডাইমেনশন যথাক্রমে 154.3×72.8×8.6mm³ ও 155.5x73x8.9mm³। GH9-এর থিকনেস একটু কম, এর একটি কারণ হলো ব্যাটারী। ওজন অবশ্য i99 এ সামান্য কম, 162g, GH9 এ 165g।

ব্যাটারী ও চিপসেট

GH9 ও i99-এ ব্যাটারী থাকছে যথাক্রমে 3000mAh ও 3500mAh। তবে ইন্টেরেস্টিং বিষয় হলো, ব্যাকআপে সম্ভবত তফাৎ খুব একটা থাকবে না। কারণ হলো এদের চিপসেট। GH9-এ দেওয়া হয়েছে Helio A20, যেটি একটি 12nm ট্রানজিস্টর সাইজের চিপসেট, ফলে এটি পাওয়ার ইফিশিয়েন্ট। i99-এ থাকা Unisoc SC9863A এর ট্রানজিস্টর সাইজ 28nm হওয়ার পাওয়ার কনজাম্পশন কিছুটা বেশি। দুটো ডিভাইসেই ৬ ঘন্টার মত SoT নিয়ে মডারেট ইউসেজে সারাদিন চলে যাওয়ার কথা।

তবে ওভারঅল কোন চিপসেটটি বেটার যদি প্রশ্ন হয়, খুব সহজেই উত্তর হলো SC9863A, যেটা i99-এ আছে। ৭০০০ টাকায় এটি বেশ ভালো একটি চিপসেট। এটি একটি অক্টাকোর চিপসেট, যার সবগুলো কোর ARM Cortex-A55 এবং চারটির ক্লকস্পিড 1.6GHz এবং বাকি চারটির 1.2GHz। GPU রয়েছে IMG8322 (PowerVR GE8322)@550MHz। Cortex-A53 এর তুলনায় A55 20% শক্তিশালী বলে বলা হয়েছে।

অন্যদিকে GH9-এ থাকা Helio A20 একটি কোয়াড কোর চিপসেট। কোর চারটি হলো 1.8GHz ক্লকস্পিডের ARM Cortex-A53। এর সাথে GPU হিসেবে আছে PowerVR GE8300@550MHz। এটা এই দামে ঠিক আছে, বিশেষ করে এটা 12nm, তবে সিপিইউ জিপিইউ দুদিকেই SC9863A থেকে বড় ব্যবধানে পিছিয়ে থাকছে।

মেমোরি ও স্টোরেজ

দুটো ফোনই 2GB র‌্যাম অফার করছে। ইনবিল্ট স্টোরেজ থাকছে 16GB করে। i99 এর স্টোরেজ এসডি কার্ডের সাহায্যে স্টোরেজ 128GB পর্যন্ত এক্সপেন্ডেবল, আর GH9-এ পুরো 256GB পর্যন্ত। অবশ্য এই বাজেটের ডিভাইসে 256GB এসডি কার্ড কেউ ব্যবহার করে কিনা জানা নেই।

ক্যামেরা

দুটো ফোনেরই প্রাইমারী ক্যামেরা 13MP। i99-এ প্রাইমারী ক্যামেরাতে স্লো মোশন রেকর্ডিংয়ের সুবিধা থাকলেও GH9-এ থাকছে না। এছাড়া i99-এর ডেপথ সেন্সর 2MP, কিন্তু GH9-এ 0.3MP। তবে ডেপথ ক্যামেরা MP কত তার চেয়ে বড় কথা হলো, এজ ডিটেকশন ঠিকঠাক কিনা। GH9 কেমন বলতে না পারলেও নিকট অতীতে HM5 ও H9 Pro-এর বোকেহ মোডে এজ ডিটেকশন কিন্তু একদমই ঠিকঠাক ছিলো না।

অন্যদিকে সামনের ক্যামেরা i99-এ 8MP, তবে GH9-এ 5MP। Walton Primo GH9-এ সেলফি ক্যামেরাতে বোকেহ মোড রয়েছে, যেটি Symphony i99-এ নেই। যাইহোক, ওভারঅল ক্যামেরা সেকশনে অবশ্যই i99 এগিয়ে থাকছে।

সফটওয়্যার

দুটো ডিভাইসেই Android 10 দেওয়া হয়েছে আর আমরা জানি যে সিম্ফনি এবং ওয়ালটন অলমোস্ট ভ্যানিলা অ্যান্ড্রয়েড তথা স্টক ইউআই প্রোভাইড করে থাকে। ডার্ক মোড, জেসচার ন্যাভিগেশন ও কিছু স্মার্ট কন্ট্রোল সুবিধা দুটো ডিভাইসেই থাকছে। আর এখানে রেগুলার অ্যান্ড্রয়েড থাকছে, গো এডিশন নয়।

সেন্সর

এ বাজেটে যেরকমটা দেখা যায় আরকি, শুধু বেসিক সেন্সরগুলো থাকছে। Proximity, Light, Accelerometer (GH9), Gravity (i99) এগুলো। GH9 এ আরেকটা বাড়তি সেন্সর আছে, Orientation, যেটা সম্পর্কে আমার জানা নেই। জাইরোস্কোপ বা কম্পাস সেন্সর থাকছে না।

অন্যান্য

দুটো ডিভাইসেই OTG সমর্থন, VoLTE-সহ 4G সমর্থন থাকছে। নোটিফিকেশন লাইট কোন ডিভাইসেই থাকছে না। অল্প বাজেটের মধ্যে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর দুটো ডিভাইসেই থাকছে। আর সফটওয়্যার ভিত্তিক ফেস আনলক সুবিধাতো এখন যেকোন বাজেটে প্রায় সব ফোনেই পাওয়া যায়। i99-এ DDR4 র‌্যাম উল্লেখ করা হয়েছে, GH9 এর বেলায় ‘হাইস্পিড’ বলা হলেও সরাসরি কোন সিরিজের তা উল্লেখ নেই।

অভিমত

এন্ট্রি লেভেলে দেশীয় ব্র্যান্ডগুলো বরাবরই ভালো করে থাকে। Walton Primo GH9 ৬৮০০ টাকায় যা অফার করছে, তা নিয়ে বড় কোন অভিযোগ আমার পক্ষ থেকে থাকছে না। ডিভাইসটি দাম হিসেবে ঠিকঠাকই আছে মনে হয়েছে। তবে কম্পারিজন উইনার যদি কাউকে নির্বাচন করতে হয় তাহলে Symphony i99 এগিয়ে থাকে। বিশেষ করে যেহেতু এখানে বেটার চিপসেট আর ক্যামেরা সেটআপ থাকছে।

আপনার কোন ডিভাইসটি বেশি পছন্দ হয়েছে? জানিয়ে দিন কমেন্ট সেকশনে।

5 Comments

    • নচ অর্থ খাঁজ। ডিসপ্লের উপরে যেখানে ক্যামেরা থাকে, সেটাকে নচ বলে।

    • Symphony Z16, Walton Primo H9।
      Z16: 6.5″ বড় ডিসপ্লে, ভালো ক্যামেরা সেটআপ, ভালো চিপসেট (Helio A25: অক্টাকোর A53@1.8GHz Max, 12nm) থাকছে। তবে ২জিবি র‍্যাম ।
      H9: 6.1″ মাঝারি ডিসপ্লে, আল্ট্রাওয়াইড লেন্স নেই, চিপসেট খারাপ না, তবে ব্যাটারী কনজ্যুম বেশি (Unisoc Sc9863A, অক্টাকোর A55@1.6GHz Max, 28nm), ৩ জিবি র‍্যাম।
      এখন আপনার জন্য যেটি বেশি উপযুক্ত মনে হয় নিতে পারেন।

Leave a Reply