কিছুদিন আগেও মিডিয়াটেক নামটাই ছিলো একটা ডিলব্রেকার অনেকের জন্যই, এন্ট্রি লেভেল ছাড়া মিডিয়াটেকের দেখা কম-ই পাওয়া যেত। তবে সাম্প্রতিক সময়ে মিডিয়াটেক কিছু ভালো চিপসেট আনায় পরিস্থিতি কিছুটা পরিবর্তন হতে শুরু করেছে। এখন পর্যন্ত যদিও স্ন্যাপড্রাগনের গ্রহণযোগ্যতা বেশি, তারপরও দেখা যাচ্ছে বিভিন্ন ব্র্যান্ড লো বাজেট, মিডবাজেট এবং হায়ার মিড বাজেটে মিডিয়াটেক চিপসেট দিতে শুরু করেছে আর তা বেশ সাড়াও পাচ্ছে মার্কেটে।

মিডবাজেটে মিডিয়াটেকের অবস্থানের এই উন্নতির জন্য Helio G সিরিজের অবদানের কথা বিশেষভাবে বলতে হয়। যদিও এখনও মিডিয়াটেকের কিছু সীমাবদ্ধতার কথা বলা হচ্ছে, যেমন গুগল ক্যামেরা সাপোর্ট সংক্রান্ত সমস্যা, হিটিং এরকম, তারপরও G35, G70, G80, G85, G90t চিপসেটগুলোর প্রত্যেকটি গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে।

এই ধারাবাহিকতায় নতুন একটি চিপসেট নিয়ে আসলো মিডিয়াটেক, Helio G95। তবে নতুন হলেও এটা আসলে এক অর্থে নতুন না, G90t এর সাথে এর পার্থক্য শুধুমাত্র GPU ক্লকস্পিড G95-এ কিছুটা বেশি। অবশ্য প্রায় একই চিপসেট নতুনভাবে আনাটা মিডিয়াটেকের জন্য নতুন না। এখানে তো তাও পার্থক্য পাওয়া যাচ্ছে, P22-G25, P35-G35, P65-G70 এগুলোর পার্থক্য পেতে হারিকেন জ্বালিয়ে খুঁজতে হয়।

তো, Helio G90t নিয়ে যদি জানা থাকে, তাহলে G95 নিয়ে শুধু এটুকুই আপনাকে জানানোর আছে যে এখানে GPU ক্লকস্পিড 900MHz, যেটি G90t তে ছিলো 800MHz। বাদবাকি আসলে আর কোন পার্থক্য দেখা যাচ্ছে না।

এটিও বিল্ড হয়েছে 12nm আর্কিটেকচারে এবং এখানে থাকছে ২টি ARM Cortex-A76@2.05GHz এবং ৬টি ARM Cortex-A55@2.0GHz। GPU হিসেবে থাকছে Mali Mali-G76 MC4@900MHz। এই চিপসেট সর্বোচ্চ FHD+ (2520 x 1080) রেজ্যুলেশনের 90Hz ডিসপ্লে সমর্থন করে।

এটি 64MP পর্যন্ত ক্যামেরা সমর্থিত এবং ভিডিও রেকর্ড করা যাবে 4K@30FPS, FHD@60FPS অথবা HD@240FPS। এখানে LPDDR4x সিরিজের সর্বোচ্চ 2133MHz ফ্রিকুয়েন্সির 10GB পর্যন্ত র‌্যাম সমর্থন করে। এটি একটি 4G চিপসেট।

Helio G90t যুক্ত Xiaomi Redmi Note 8 Pro বেশ জনপ্রিয়তা পেলেও হিটিংয়ের বিষয়টি নিয়ে সমালোচনা ছিলো। এরপর Realme 6 একই চিপসেট দিয়ে বাজারে এসেছে এবং রিভিউয়াররা মন্তব্য করেছেন অপটিমাইজেশনের কারণে হিটিং সমস্যাটা কমেছে। যাইহোক G90t এর মতই বরং GPU ক্লকস্পিড আরো বেশি হওয়ায় G95-এও হিটিং সমস্যার সম্ভাবনা থেকে যাচ্ছে। তবে এখানে অপটিমাইজেশনের বিষয়ও আছে।

কাগজে কলমে এটি SD730 এর ক্যাটেগরীতে পড়ে এবং ২০-২৫ হাজার টাকার মধ্যে এটি একটি ভালো চিপসেট হতে পারে। সামনে হয়ত এই বাজেটের ফোনে এই চিপসেটটির দেখা পাওয়া যাবে।

আরো জানুন

One comment

Leave a Reply