১০০ টাকারও কমে ব্লুটুথ ইয়ারফোন!

সবচেয়ে কমদামে ব্লুটুথ ইয়ারফোন!

এই জিনিসটা অনেকেই হয়ত ব্যবহার করেছেন।যারা করেননি তাদের অবগতির জন্য লিখছি…

  • রাস্তাঘাটে,ফুটপাতে,দোকানে এমনকি ফেরিওয়ালার কাছেও এই জিনিস পাবেন!নিতান্তই ছোট্ট এই গ্যাজেটটি ১০০টাকার নিচেই পাওয়া যায়।তবে এটা এখন পর্যন্ত টানা ৫-৬ মাস ব্যবহার করার পরেও এর ব্যাটারি ব্যাকআপ যা পাচ্ছি তা সত্যিই এটা থেকে কেউই আশা করবে না।

একদম কম করে হলেও ২ ঘন্টা ব্যাকাপ দেয় বড় একটি খেজুর সাইজের এই ব্লুটুথ ইয়ারফোন!!!😯🤭😯

এর ব্যাপারে বিস্তারিত রিভিউ পাবেন উপরে যুক্ত করে দেওয়া ভিডিওটিতে…

One comment

  1. অল্প দামে ভালো প্রোডাক্ট বানানোর পরও প্রতিষ্ঠিত অন্য কোম্পানির লোগো বা কাছাকাছি নাম ব্যবহার করাটা আমার কাছে নিন্দনীয়, কিছুক্ষেত্রে এটা প্রতারণার মধ্যেও পড়ে। আরো অসুবিধা আছে, যেমন একটা খাতার পেজের কোয়ালিটি খুব ভালো লেগেছিলো, সমস্যা হলো খাতার নাম Bashudhara, এই নামটা কতজন ইউজ করে আল্লাহ মালুম। নাম দিয়ে কোনদিনই ওই সেম খাতা খুঁজে বের করতে পারবো না। অথচ কোম্পানি নিজেদের কোন ইউনিক নাম দিলে হয়ত ওই খাতা আবার কিনতে পারতাম। এই প্রোডাক্টের ক্ষেত্রেও রাস্তাঘাটে ১০০ টাকায় Samsung ব্র্যান্ডের ওয়ারলেস ইয়ারফোন হয়ত বহু আছে, কিন্তু এই ৫-৬ ঘন্টা টেকা, ২ ঘন্টার ব্যাকআপওয়ালাটা কোনটা তা বোঝার কোন রাস্তা নেই।
    বিপরীত একটা উদাহরণ দিই, বাংলাদেশী কোম্পানি Excel-এর একটা wired ইয়ারফোন ব্যবহার করছি। বেশ কয়েকমাস পর এক কান রিসেন্টলি মোটামুটি গেছে বটে, তবে দাম হিসেবে যতদিন টিকেছে সার্ভিস+সাউন্ড কোয়ালিটি নিয়ে আমি সন্তুষ্ট। পরে মায়ের জন্য আরেকটা সেম ইয়ারফোন কিনেছিলাম এবং সামনেও হয়ত Excel ইয়ারফোন কিনতে পারি। অথচ তারা যদি অন্য কোম্পানির ব্র্যান্ডিং ব্যবহার করতো, তাহলে এমনটা সম্ভব ছিলো না, সম্ভবত সিমপ্লি প্রথমবারই কিনতাম না।

Leave a Reply