মাইক্রোসফটের নিম্নমানের প্রমোশন যেভাবে উইন্ডোজের এক্সপ্রেরিয়েন্সকে বিরক্তিকর করে…

উইন্ডোজ ১১ নিয়ে আমার মন্তব্য কিছু দিক বাদে পজিটিভ ছিলো, এবং অবশ্যই ডিজাইন ও ফ্রেন্ডলিনেসে এটা খুব চমৎকার, তবে দিনশেষে মোড়ক বদলালেও সবকিছু তো বদলে যায়নি। ঘটনার শুরু অবশ্য এখানে না, ঘটনার শুরু আরো আগেই, আর এটা উইন্ডোজ ১১ স্পেসিফিক কোন বিষয়ও না, উইন্ডোজ ১০-এও একই ছিলো।

মাইক্রোসফটের অধীনে রয়েছে উইন্ডোজ নামের একটি অপারেটিং সিস্টেম, মাইক্রোসফট এজ নামক একটি ওয়েব ব্রাউজার এবং বিং নামের একটি সার্চ ইঞ্জিন। উইন্ডোজ একটি পেইড সফটওয়্যার, তবে মাইক্রোসফট এজ ও বিং সার্চ ইঞ্জিন বিনামূল্যে ব্যবহারযোগ্য। উইন্ডোজের সাথে মাইক্রোসফট এজ প্রি-ইন্সটল্ড থাকে এবং মাইক্রোসফট এজে ডিফল্ট সার্চ ইঞ্জিন হলো বিং। এ পর্যন্ত সবকিছুই ঠিকঠাক।

কিন্তু সমস্যাটা শুরু হয় যখন মাইক্রোসফট যখন তাদের প্রোডাক্টের প্রমোশন খুব এগ্রেসিভলি করতে থাকে। প্রমোশন করায় দোষের কিছু নেই, নিজের প্রোডাক্টের প্রমোশন কে না চাইবে। কিন্তু উইন্ডোজ এটা যেভাবে করে তা নিয়ে প্রশ্ন তোলাই যায়। উইন্ডোজ একটা পেইড সফটওয়্যার হওয়া সত্ত্বেও বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে থাকে, তাদের নিজেদের পণ্যের এমনকি তৃতীয় পক্ষেরও!

উইন্ডোজের নিয়মিত ব্যবহারকারীরা স্টার্ট মেনুতে Netflix, Candy Crash Saga, Instagram, PicsArt সহ বিভিন্ন অ্যাপ কখনো লক্ষ্য করে থাকবেন, যা আপনি ইন্সটল করেননি। এবং তা যে বিজ্ঞাপন তা-ও উল্লেখ থাকে না, যখন তাতে ক্লিক করা হয়, এমনকি কনফার্মেশন ছাড়াই ইন্সটল শুরু হয়ে যায়। বিজ্ঞাপন দেয়ার পদ্ধতি হিসেবে নিম্নমানের, বলা-ই যায়। তবে মাইক্রোসফট এজ আর বিং-কে এনফোর্স করার ক্ষেত্রে মাইক্রোসফট আরো এক কাঠি বেশি সরেস। ইউজারদের কাছে তারা মাইক্রোসফট এজকে তুলে ধরেছিলো এভাবে- (ছবি সোর্স)

ইতোপূর্বে ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার বা মাইক্রোসফট এজের কাজ ছিলো মূলত অন্য ব্রাউজার ডাউনলোড করা। এখনকার ক্রোমিয়ামভিত্তিক এজ সেখানে মেজর ব্রাউজারদের সাথে কম্পিটিটিভ একটি অপশন, কিন্তু সবাই অবশ্যই এটা ইউজ করবে না, অনেকের জন্য এখনো এটা ঠিক আগের কাজটাই করে। আর এখানে আর কোন ব্রাউজার সার্চ করলে তারা কী করে আমরা সবাই মোটামুটি জানি।

একটা ব্রাউজার ডাউনলোড করার সময়ে এই প্রমোশনটা মোটেও মানসম্মত দেখায় না। এরপর লেখাটা দেখুন। মাইক্রোসফট এজের প্রশংসামূলক কিছু লিখলে সেটাও একটা দিক হতো, কিন্তু লেখাটা হলো অন্য ব্রাউজার ডাউনলোডের দরকার নেই! মানে কী? অন্যরা ব্রাউজার বলে কি মানুষ না? এজ তো নিজেই ক্রোমিয়াম ইঞ্জিনে চলে। আর Try now কী কথা! আমি তো এজ থেকেই সার্চ করলাম।

এরপর Google সার্চ দিলে মাইক্রোসফট তাদের Bing সার্চ বক্স নিয়ে হাজির হবে। এখানেও স্বচ্ছতা নেই, এটা Bing না Google সার্চ তা উল্লেখ করেনি তারা। এরপর Try search here লেখা আছে। Google তো Bing এই সার্চ করলাম, আবার কী ট্রাই করব?

কিছুটা ধারণা ছিলো এ নিয়ে, কাজেই এক্সপেক্টেডও ছিলো। সার্চ ইঞ্জিন বদলানোর সময় আবার কিছু উপদেশবাণী পাবো আশা করেছিলাম, তা-ও পাইনি, শুধু Bing থেকে Google-কে Default সেট করতেই একটা নতুন অপশন নিয়ে হাজির হলো নতুন ট্যাবে সার্চ কোথায় হবে। বলা-ই বাহুল্য, এখানে সার্চ বক্স মানে Bing, এখানেও তারা স্বচ্ছতা রাখেনি।


তবে এই পর্যন্ত ঘটনার পর এর মধ্যে উইন্ডোজ চালানো হয়নি তেমন, যেহেতু সাধারণত ফিডোরা-ই ব্যবহার করে থাকি। উইন্ডোজে ফায়ারফক্স ইন্সটল করলেও ডিফল্ট ব্রাউজার চেঞ্জ করা হয়নি। তো যাই হোক, আজ এজ শুরুতেই আমাকে নিচের পপআপ হাজির করলো।

এতক্ষণ পর্যন্ত বলা কোনকিছুই একটা ট্রিলিয়ন ডলার কোম্পানির একটা পেইড প্রোডাক্ট থেকে ভালো দেখায় না। তবে আগের ঘটনাগুলো মোটামুটি জানতাম উইন্ডোজ এমনই করে থাকে, কাজেই পোস্ট করার দরকার বোধ হয়নি। কিন্তু সেটিংস বদলানোর পর আবার আমাকে বিং-এ ফিরে যেতে বলবে কয়েকদিন পর এইটা এক্সপেক্ট করিনি মোটেও। অবশ্যি যা বুঝলাম মাইক্রোসফট এজ আর বিং-কে আরো বাজেভাবে আগে থেকেই এনফোর্স করে আসছে।

ব্যতিক্রম ছাড়া পণ্যগুলোর পেছনে ব্যবসায়িক উদ্দেশ্য থাকে। কেউ হয়ত সরাসরি তাদের পণ্যটি বিক্রয় করে, কোন পণ্য বিনামূল্যে পাওয়া গেলে সেখানে হয়ত বিজ্ঞাপন প্রদর্শিত হয়, আবার বিজ্ঞাপন প্রদর্শিত না হলে হয়ত তারা ব্যবহারকারীদের তথ্য সংগ্রহ করে, যা তারা কাজে লাগায়। একটা পর্যায় পর্যন্ত এগুলো খারাপ কিছু না, তবে মাইক্রোসফট উইন্ডোজ একই সাথে এর তিনটিই করছে এবং সেটাও সবচেয়ে স্বচ্ছ উপায়ে নয়।

এখানে মাইক্রোসফটের পক্ষে একটি যুক্তি আসতে পারে, বহু মানুষ উইন্ডোজ পাইরেসি করে ব্যবহার করে, যে ক্ষতি তাদের পূরণ করতে হয়। যদি পাইরেসি সমস্যা হয়ে থাকে, তবে এটা তাদের মৌন সম্মতিতেই, কারণ পাইরেসি বন্ধের কোন কার্যকর চেষ্টা মাইক্রোসফট কখনোই করেনা এবং এমনকি তাদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে বিনামূল্যে আইএসও ডাউনলোড করে ইন্সটল করে এক্টিভেশন না করলেও তারা তা নিয়মিত চালিয়ে যাওয়ার সুযোগ দেয়। একটা সময় আমি মনে করেছিলাম মার্কেটে আধিপত্য ধরে রাখাটাই এর মূল কারণ, কিন্তু এখন স্পষ্টতই দেখা যাচ্ছে, পণ্যটি না কিনে ব্যবহার করলেও মাইক্রোসফট লাভবান হওয়ার বিকল্প রাস্তা খোলা রেখেছে।

একটি পণ্যের ওপর সব মানুষের নির্ভর হয়ে পড়ার একটি সমস্যাও এখানে দেখা যায়। আমরা অন্য উদাহরণও দিতে পারি। যেমন- ইউটিউব। তারা তাদের এখন প্রায়ই পরপর দুটি আনস্কিপেবল এড প্রদর্শন করে থাকে, এবং এতে বহু ব্যবহারকারী ক্ষোভ প্রকাশ করলেও জাস্ট আমরা এর ওপর খুব বেশি নির্ভর হয়ে পড়েছি।

Leave a Reply