Symphony Z16: বেশ ভালোই কিন্তু!

Symphony Z16

দেশের স্মার্টফোন মার্কেটে এন্ট্রি লেভেল বাজেটে সিম্ফনি বরাবরই ভালো অব্স্থানে রয়েছে।সাম্প্রতিক সময়ে তাদের Z30 ও Z28 বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। এবার তারা নিয়ে এলো Symphony Z16। আসলে এটাকে বলা চলে Z28 এর 2/32 ভ্যারিয়েন্ট, র‍্যাম বাদে এদের মধ্যে তেমন একটা পার্থক্য নেই।

একদা Z সিরিজ সিম্ফনির ফ্ল্যাগশিপ সিরিজ ছিলো। তবে এখন তা হয়ে গেছে সিম্ফনির নচ সিরিজ। এখন পর্যন্ত ৮টি নচযুক্ত ডিসপ্লের ফোন এনেছে সিম্ফনি এবং প্রতিটিই Z সিরিজ থেকে। তবে আমার মনে হয় এই ফোনটা তারা i সিরিজ থেকে আনতে পারতো, Z28 এর সাথে মিলিয়ে i28 নাম দিয়ে।

Symphony Z16-এর দাম রাখা হয়েছে ৮৩০০ টাকা। Itel Vision 1 Plus (2/32) আর Realme C11 (2/32) এই ফোনটির বড় প্রতিপক্ষ হতে পারে। Walton Primo HM5 (2/32)-ও আছে, তবে সেটির ক্যাটাগরী কিছুটা ভিন্ন। পোস্টের শেষের দিকে কিছু কম্পারিজন থাকছে।

ডিসপ্লে

6.52″ এর বড় ডিসপ্লে থাকছে ফোনটিতে। ডিসপ্লের বেজেল ঠিক আছে, তবে নিচের চিন এরিয়াটি এখনকার হিসেবে বেশ চওড়া। তবে এটা কোন ডিলব্রেকার না অবশ্যই। এর ডিসপ্লে HD+ (1600*720) রেজ্যুলেশনের একটি IPS প্যানেল, যার ‍~PPI ‍270। এই দামে HD+ নিয়ে কোন আপত্তি থাকার কথা নয়, আর আমার জানামতে ব্রাইটনেসও বাজেট অনুযায়ী ঠিক আছে। তাই ডিসপ্লে সেকশনে কোন অভিযোগ থাকছে না।

ডিজাইন ও বিল্ড

ডিজাইনের কথা বললে ফোনটির ডিজাইন Z28 এর অনুরূপ। তবে Z28 এর ব্যাকপার্ট গ্লসি হলেও Z16-এ ম্যাট ফিনিশ দেওয়া হয়েছে ফলে দেখতেও খুব সুন্দর লাগে, আঙুলের ছাপও তেমন পড়ে না। আর এখানে কালার থাকছে Midnight Blue ও Pine Green। Pine Green কালারটিতে নতুনত্ব আছে, বেশ মনে ধরেছে। তবে সাধারণত ডার্ক বা ব্লাকের সাথে গ্র্যাডিয়েন্ট হলে Midnight Blue বলা হয়, এর ব্লু কালার ভ্যারিয়েন্টটিকে Aqua Blue বলাটা যৌক্তিক।

ক্যামেরা

Z30 ও Z28 এর মত এখানেও রেয়ারে থাকছে ৩টি ক্যামেরা। 13 MP মেইন ক্যামেরা ও 2MP ডেপথ সেন্সরের পাশাপাশি তৃতীয় ক্যামেরাটি হলো 5MP আলট্রাওয়াইড। এই দামের মধ্যে আল্ট্রাওয়াইড থাকাটা বেশ চমৎকার। তবে 8MP-র পরিবর্তে এবার সামনে নচে থাকা ক্যামেরাটি 5MP।

সাম্প্রতিককালে সিম্ফনি ক্যামেরা সেকশনে খুব ভালো করেছে। Z30 আর Z28 ক্যামেরা সেকশনে খুব প্রশংসিত হয়েছে। এখানেও সেম রেয়ার ক্যামেরা সেটআপ। বিশেষ করে ডে-লাইটে এর ছবিগুলো এই বাজেটে অসাধারণ। কালারগুলো বেশ প্রাণবন্ত, প্রকৃতির ছবি ধারণের জন্য বেশ উপযুক্ত।

যদি ক্যামেরার প্রায়োরিটি থাকে, তাহলে এই বাজেটে Z16 সম্ভবত সবচেয়ে ভালো। কিছু ইমেজ স্যাম্পল যুক্ত করে দিচ্ছি, যা আপনাকে ধারণা দিতে পারবে। ছবিগুলোর জন্য Md Mohim Uddin ভাইকে বিশেষ ধন্যবাদ।

এর ত্রিপল ক্যামেরাটি কিন্তু আসলেই কাজের। ডেপথ সেন্সরটির ডিটেকশন এই বাজেটে খারাপ নয় এবং ওয়াইডঅ্যাঙ্গেল লেন্সটি রেজ্যুলেশন কম হলেও 114° ফিল্ড অফ ভিউয়ে বেশ ভালো ছবি তোলে।

প্রাইমারী লেন্স
ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স

অন্যদিকে সেলফি ক্যামেরা Z28-এ 8MP হলেও এখানে 5MP। MP কম মানেই ক্যামেরা খারাপ এমন অবশ্যই না, তবে সেলফি ক্যামেরাতে পোট্রেট মোড থাকছে না, Z28 এ-ও ছিলো না, যেটা অনেকের কাছে ডাউনসাইড হতে পারে।

র‍্যাম-রম

Symphony 16-এ দেওয়া হয়েছে 2GB র‍্যাম এবং 32GB স্টোরেজ, স্টোরেজ এক্সপেন্ড করা যাবে ১২৮ জিবি পর্যন্ত।। যেহেতু আদতে র‍্যামটাই Z28 এর সাথে এর তফাৎ, তাই এটা নিয়ে কোন সমস্যা দেখি না। 3GB র‍্যাম যাদের প্রয়োজন, ৭০০ টাকা বাড়িয়ে Z28 তো আছেই।

চিপসেট

এন্ট্রি লেভেলের জাতীয় চিপসেট Helio A25 থাকছে এখানে। খুব পাওয়ারফুল না হলেও এই বাজেটে এটা নিয়ে কোন আপত্তি থাকছে না। 12nm আর্কিটেকচারে তৈরি এর প্রসেসরের কোরগুলো হলো ৪টি 1.8GHz ও ৪টি 1.5GHz এর Cortex A53। সাথে GPU PowerVR GE8320@600 MHz।

এই দামে 2GB র‍্যামের সাথে এর চেয়ে বেশি শক্তিশালী চিপসেট প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না। আর এই চিপসেটটি AI, ক্যামেরা প্রসেসিং এসব দিকে বেশ ভালো এন্ট্রি লেভেল হিসেবে, ক্যামেরা সেকশনে এর পারফর্মেন্সের কৃতিত্ত্বের একটা অংশ কিন্তু চিপসেটের প্রাপ্য।

ব্যাটারী

এখানে দেওয়া হয়েছে 4000 mAh Li-Poly ব্যাটারী। এখনকার হিসেবে এটাকে বড় বা ছোট কোনটাই বলা যাচ্ছে না, ওকে লেভেলের। 10W চার্জার দিয়ে ২ ঘন্টার কিছু বেশি সময় লাগতে পারে ব্যাটারীকে শূন্য থেকে পূর্ণ করতে। আর ব্যাকআপ একদিনের বেশি চলে যাওয়ার কথা। ফোনটির থিকনেস 8.4mm, অর্থাৎ এটি বেশ স্লিম একটি ফোন।

সফটওয়্যার

Android 10 দেওয়া হয়েছে Symphony Z16-এ। ফলে ডার্ক মোডসহ বিভিন্ন সুবিধা পাওয়া যাবে। সিম্ফনি বরাবরই অলমোস্ট স্টক ইউআই ব্যবহার করে আসছে। সাথে Digital Wellbeing, Smart Control, One Hand Mode, Lift to Wake-up, Smart Action ও Smart Gesture এরকম কিছু ফিচার যুক্ত রয়েছে।

লো কনফিগারেশনের ফোনে কাস্টম ইউআই এর পরিবর্তে স্টক ইউআই ব্যবহারটাই ভালো বলে আমি মনে করি। কেননা বাড়তি ফিচারগুলো সিস্টেমকে ভারি করে রিসোর্স ব্যবহার বাড়িয়ে দিতে পারে।

সিম্ফনির বিষয়ে একটি অভিযোগ আছে তারা সফটওয়্যার আপডেট ও বাগফিক্স দেয় না বললেই চলে। তাই সফটওয়্যারে কোন বাগ থাকলে সেটা থেকেই যায়। Symphony Z30-তে একটা সমস্যা ছিলো স্ক্রিন ফ্লিকারিং। তবে গতকালকে তারা OTA আপডেটের মাধ্যমে এই সমস্যাটির সমাধান করেছে। আশা করব সামনেও তারা রেগুলার আপডেট না দিলেও অন্তত এরকম বাগ ফিক্সগুলো দ্রুততার সাথে দিবে।

সেন্সর

বরাবরের মতই এখানে শুধুমাত্র প্রক্সিমিটি, লাইট ও গ্রাভিটি সেন্সর থাকছে। কোন ম্যাগনেটোমিটার বা জাইরোস্কোপ সেন্সর থাকছে না, আর এই বাজেটে খুব একটা থাকেও না। তবে সিম্ফনিসহ সব কোম্পানিরই এই দিকে একটু খেয়াল করা উচিৎ, বিশেষ করে জাইরো সেন্সর বেশ কাজে লাগে।

যাদের জানা নেই তাদের জন্য বলে রাখি, ম্যাগনেটোমিটার প্রয়োজন হয় কম্পাস ব্যবহারে আর জাইরোস্কোপ 360° ছবি/ভিডিও (যেমন গুগল ম্যাপ স্ট্রিট ভিউ) দেখতে সাহায্য করে।

অন্যান্য

Symphony Z16-এ ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর থাকছে। আর সফটওয়্যার বেজড ফেস আনলক তো এখন সব ফোনেই থাকে। এবারও থাকছে একটা ডেডিকেটেড গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট বাটন। চার্জিংয়ের জন্য থাকছে মাইক্রোইউএসবি টাইপ বি, এই বাজেটে আমার এটা নিয়ে কোন আপত্তি নেই।

বিশেষ একটি ফিচার হলো, এখানে থাকছে নোটিফিকেশন লাইট। এখন নোটিফিকেশন লাইট খুব একটা দেখা যায় না, অথচ অনেকের জন্য এটা বেশ প্রয়োজনীয়। এটি একটি 4G VoLTE সুবিধাযুক্ত ফোন। এখানে ন্যানো সিম কার্ড ব্যবহার করা যাবে দুটি। থাকছে ডেডিকেটেড মাইক্রো এসডি কার্ড স্লট।

কম্পারিজন

Z28 থেকে Symphony Z16-এর দাম ৭০০ টাকা কম এবং এই ৭০০ টাকার জন্য কম্প্রোমাইজ করতে হচ্ছে র‍্যাম ও সেলফি ক্যামেরাতে। তবে প্লাসপয়েন্ট হলো এখানে থাকে ম্যাট ফিনিশ।

Itel Vision 1 Plus (2/32) ও Realme C11 (2/32) থেকে দামে এটি যথাক্রমে ২০০ ও ৭০০ টাকা কম। এই ফোনদুটোতে 5000 mAh ব্যাটারী দেওয়া হয়েছে। ফলে ব্যাটারীতে পিছিয়ে থাকে Z16।

তবে আল্ট্রাওয়াইড ক্যামেরা Z16-এ থাকলেও C11 বা Vision 1 Plus-এ নেই। Z16-এর ক্যামেরার শুধু সংখ্যা নয়, কোয়ালিটিও ভালো। Itel Vision 1 Plus থেকে চিপসেট Z16-এ বেটার, যদিও Realme C11 থেকে পিছিয়ে আছে অনেকটাই। তবে C11-এ ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর থাকছে না।

Z16 থেকে ৩০০ টাকা বেশি দামে Walton Primo HM5-এ আছে 3GB র‍্যাম ও 64GB স্টোরেজ এবং 4900 mAh ব্যাটারী। তবে এর চিপসেট Helio A20 বেশ দুর্বল। এর ডিসপ্লে 6.1″, যা মাঝারি ডিসপ্লে যারা পছন্দ করেন তাদের জন্য উপযুক্ত, অন্যদিকে Z16-এ 6.5″ এর কিছুটা বড় ডিসপ্লে আছে। আর অবশ্যই ক্যামেরাতেও Z16 এগিয়ে, HM5 এ ডুয়াল ক্যামেরা থাকলেও এর পোট্রেট মোড কাজের না।

মতামত

এন্ট্রি লেভেলে সিম্ফনি বর্তমানে বেশ ভালো করছে। ৮ হাজারের আশেপাশে Symphony Z16-ও বেশ ভালো বলেই মনে হচ্ছে। র‍্যাম বা সেলফি ক্যামেরা কম হওয়া নিয়ে আমার পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ থাকছে না, যেহেতু ৭০০ টাকা বাড়িয়ে Z28 আছে, যেখানে 3GB র‍্যাম আর 8MP সেলফি ক্যামেরা থাকছে।

Loading spinner

Leave a Reply

Your email address will not be published.

You may use these <abbr title="HyperText Markup Language">html</abbr> tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

*