বিশাল ডিসপ্লে এবং অস্থির আউটলুকে প্রিমো এনএফ৫

প্রিমো এনএফ সিরিজ বিশেষভাবে জনপ্রিয় বড় ডিসপ্লের স্মার্টফোন এর জন্য!আপনার যদি একটি স্মার্টফোন দরকার হয় অনলাইন ক্লাসের মত নিয়মিত কাজের জন্য , তাহলে সেখানে বড়  ডিসপ্লে থাকা অনেক বেশি জরুরী। প্রায় বলা চলে ৭ইঞ্চি ডিসপ্লে নিয়ে ওয়ালটন এবার যে প্রিমো এনএফ৫ স্মার্টফোনটি নিয়ে আসল এই স্মার্টফোনটি একটি পারফেক্ট ফ্যাবলেট। বড় ডিসপ্লের কারনে ইউজার ট্যাবের মজা কিছুটা এই স্মার্টফোনেই পাবেন, যদিও এটা কথার কথা, ট্যাব তো ট্যাবই; তবুও বড় ডিসপ্লে বলে কথা! অনলাইন ক্লাসসহ, যেকোনো কাজের জন্য স্মার্টফোনটিকে লং টাইম রানিং রাখতে ওয়ালটন এতে দিয়েছে ৪০০০ এমএএইচ ব্যাটারি।

লো বাজেট লাইনআপ হিসেবেও  এনএফ সিরিজ অনেকটা সমাদৃত! প্রায় বছরখানেক পর প্রিমো এনএফ৪ এর পরে সম্পূর্ন নতুন আঙ্গিকে এনএফ সিরিজে অনেক বড় একটি আপডেট নিয়ে ওয়ালটন এবার  এনেছে এই নতুন প্রিমো এনএফ৫ স্মার্টফোন। এনএফ সিরিজে এই প্রিমো এনএফ৫ অনেক বড় একটি আপডেট; কেননা এই স্মার্টফোনটিতে আপনি ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ এর দেখা পাবেন; যেখানে এনএফ সিরিজের আগের কোন মডেলেও ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপেরও দেখা পাওয়া যায় নাই।

একনজরে প্রিমো এনএফ৫

  • ৬.৮২ ইঞ্চি বিগ ডিসপ্লে
  • ৩ জিবি র‍্যাম, ৩২ জিবি রম
  • ২৫৬ জিবি পর্যন্ত এক্সটারনাল মেমোরি সাপোর্ট
  • হেলিও এ২০ চিপসেট
  • ট্রিপল ক্যামেরা সেটাপ
  • ৪০০০ এমএএইচ ব্যাটারি
  • ৯৬৯৯ টাকা

স্মার্টফোনটিতে ওটিজি সুবিধা থাকার ফলে, ডিভাইসটিতে এক্সটার্নাল স্টোরেজ ডিভাইস কানেক্ট করে গুরুত্বপূর্ণ নানান ফাইল ট্রান্সফারসহ, মাউস, কী-বোর্ড কানেক্ট করে – ভার্সিটি স্টুডেন্টরা তাদের নানান অ্যাসাইনমেন্ট এর মত কাজও চালিয়ে নিতে পারবেন! সবমিলিয়ে দারুন আউটলুক, বিগ ডিসপ্লে এবং ব্যাটারি, মানসম্মত হার্ডওয়্যার এবং সাশ্রয় বাজেটের নতুন এই প্রিমো এনএফ৫ স্মার্টফোন নিয়ে নিয়নবাতির এই লেখায় থাকবে বিস্তারিত !

ক্যামেরা

প্রথমেই আসি ক্যামেরা নিয়ে; স্মার্টফোনটিতে পাবেন ১৩ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর সহ একটি ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ। স্মার্টফোনের ক্ষেত্রে সাধারণত দু’প্রকার ক্যামেরা সেন্সর হয়, সিমোস এবং বিএসআই। আর বিএসআই সেন্সর যুক্ত ক্যামেরার লো লাইট পারফর্মেন্স অনেক বেশি ভালো হয় সিমোস এর তুলনায়। আর এনএফ৫ এর রিয়ার এবং ফ্রন্ট দু’পাশেই থাকছে বিএসআই ক্যামেরা সেন্সর। সুতরাং অন্ধকারে ছবি কেমন আসবে না আসবে এই বিষয়ে চিন্তা নাও করতে পারেন।

ক্যামেরার লেন্সের ফোকাল লেন্থ এর অপর এর ছবির মান অনেকটা নির্ভর করে থাকে। এই ফোকাল লেন্থকে প্রকাশ করা হয় এপারচার দ্বারা। এপারচার নাম্বার যত ছোটো হবে ক্যামেরার ওপেনিং তত বড় হবে। আর এই ফোনটির ডুয়াল ক্যামেরা মডিউলে আপনি পাচ্ছেন এপারচার এফ২.০। যা আপনাকে অবজেক্টকে তুলনামূলক ভালো ফোকাস পয়েন্টে রেখে খুব দারুন কিছু ছবি তুলতে সহায়তা করবে।

ক্যামেরা ইউআই

এর এপারচার এফ২.০ আপানাকে ব্যাকগ্রাউন্ড ব্লার করতে অনেক সুবিধা দিবে। অনেক ফোনে লেন্স এর বেপারটা খুব ভালোভাবে দেখা হয়না, তবে ভাল মানের লেন্স কিন্তু ছবিকে ক্লিয়ার ভাবে উপস্থাপন করার মাধ্যমে কোয়ালিটিকে কিছু গুনে বাড়িয়ে দিতে পারে। প্রিমো এনএফ৫ ডিভাইসটির এই রিয়ার ক্যামেরা মডিউলে আপনি পাচ্ছেন ৫পি লেন্স, যা আপনার জন্য আরেকটি প্লাস পয়েন্ট।

ক্যামেরা স্যাম্পল

ফ্রন্ট প্যানেলে সেলফি এবং সেলফ/ভিডিও কলিং এর জন্য পাচ্ছেন ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। এর স্পেশাল ফিচার হিসেবেও থাকছে ৪পি ক্যামেরা লেন্স, টাইমস ল্যাপ্স, বোকেহ মোড, ওয়াটারমার্ক, ফেস ডিটেকশন ইত্যাদি। সেলফি লাভারদের জন্যে, পাশাপাশি ভিডিও মিটিং এর জন্যে এই দামে অনেক বড় প্লাস পয়েন্ট।

হার্ডওয়্যার এবং স্টোরেজ

স্মার্টফোনটিতে থাকছে মিডিইয়াটেক এর এমটি৬৭৬১ চিপসেট, যেটি হচ্ছে হেলিও এ২০ প্রসেসর। এই হেলিও এ২০ এর সাথে ডিভাইসটিতে গ্রাফিক্স প্রোসেসিং ইউনিট থাকছে ইমাজিনেসন টেকনলজিস এর ‘পাওয়ারভিআর জিই৮৩০০’ জিপিইউ।

স্মার্টফোনটিতে হালের জনপ্রিয় বেশকিছু গেমস খেলে মোটামোটি ভালই পারফর্মেন্স পাওয়া গিয়েছে। এই বাজেটে সাধারণত এই হার্ডওয়্যার স্পেক্স মানানসই, অনলাইন ক্লাস, দৈনন্দিন নিয়মিত অনলাইন সার্ফিং, এবং টুকটাক গেমিং এর মত নিয়মিত কার্যকলাপ এর জন্য এই স্পেক্স দারুনভাবে চলনসই। স্মার্টফোনটির সিস্টেম ব্যাকআপ দিবে এতে থাকা ৩ জিবি র‍্যাম, পাশাপাশি এতে ইন্টারনাল স্টোরেজ হিসেবে ৩২ জিবি তো থাকছেই! তবে সবচেয়ে আকর্ষণীয় ব্যাপার, যদি আপনার অতিরিক্ত স্টোরেজ প্রয়োজন হয়, তবে দুইটি সিমের পাশাপাশি এতে আপনি ২৫৬ জিবি পর্যন্ত এসডি কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন।

স্মার্টফোনটির গিকবেঞ্চে সিঙ্গেল কোরে স্কোর এসেছে ৭৮৯ এবং মাল্টি কোরে রেজাল্ট এসেছে ২৩১৯। স্মার্টফোনটি ৫ফিঙ্গার মাল্টি-টাচ সাপোর্টেড।

ডিসপ্লে

প্রিমো এনএফ সিরিজ বিখ্যাত বড় ডিসপ্লের জন্য, এনএফ৫ ডিভাইসটিতেও তার ব্যত্যয় ঘটেনি। স্মার্টফোনটিতে পাবেন ১৬৪০*৭২০ পিক্সেল রেজুলেসনের ৬.৮২ ইঞ্চি বিগ ডিসপ্লে! যা একটি ইন্সেল আইপিএস প্রযুক্তির ডিসপ্লে প্যানেল। ২০ঃ৯ আস্পেক্ট রেসিওর এই ডিসপ্লেটির উপরে পাবেন একটি ভি- শেপড নচ।

সর্বপ্রথম আইফোন ৪এস এর মাধ্যমে এই ইনসেল আইপিএস ডিসপ্লে প্রযুক্তির দেখা মেলে। সাধারন আইপিএস ডিসপ্লেতে টাচ প্যানেল এবং ডিসপ্লে দুটি আলাদা লেয়ারে বিভক্ত থাকে। তবে ইনসেল আইপিএস ডিসপ্লেতে দুটি আলাদা লেয়ারের বদলে এখানে একটি সিঙ্গেল লেয়ার থাকে। একারনে ইনসেল আইপিএস ডিসপ্লে অনেক পাতলা এবং এটি অনেক বেশি টাচ রেস্পন্সিভও হয়ে থাকে। সুতরাং প্রায় ৭ইঞ্চির বিগ ডিসপ্লের পাশাপাশি যেহেতু ইনসেল আইপিএস প্যানেল পাচ্ছেন, সে হিসেবে ব্যবহারকারির ভিউইং এক্সপেরিয়েন্স হবে অনবদ্য; আর যদি আপনার কাজ হয় অনলাইন ক্লাস কিংবা অনলাইন মিটিং তাহলে তো বড় ডিসপ্লে আপনার অবশ্যই লাগবে!

ডিজাইন

বাজেটের হিসেবে এনএফ৫ এর যে আউটলুক, তা নিঃসন্দেহে এর আগের এনএফ সিরিজের সকল মডেলকে হার মানাবে। দারুন রেক্ট্যাঙ্গেল শেপড ট্রিপল ক্যামেরা প্যানেল নিয়ে স্মার্টফোনটির রিয়ার প্যানেলের মোল্ডেদ টেক্সচার সমৃদ্ধ ডিজাইন স্মার্টফোনটির প্রিমিয়ামনেস এর দামের হিসেবে অনেক বাড়িয়েই দিয়েছে বলা চলে! আর রিয়ার প্যানেলে মোল্ডেদ টেক্সচার এর কারনে স্মার্টফোনটিকে গ্রিপ করাও হবে অনেক সহজ; আর বড় ফর্ম ফ্যাক্টরের ফোন হলেও পেছনের মোল্ডেদ টেক্সচার এরকারনে একহাতে রেখেও স্মার্টফোনটি অনায়াসে ব্যবহার করা যাবে।

স্মার্টফোনটি বাজারে দারুন বেগুনি, নীল, সবুজ এবং কালো কালার ভেরিয়েন্টে পাওয়া যাবে। আর সবগুলো কালার ভেরিয়েন্টে দারুন একটি ডুয়াল গ্লসি ফিনিস দিবে। মেয়েদের জন্য বেগুনি কালার ভেরিয়েন্টি অনেক বেশি মানানসই হবে। রিয়ার প্যানেলে কামেরা বাম্পের নিচে একদম মাঝামাঝি পজিশনে ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর থাকার কারনে, ব্যবহারকারিদের ফিঙ্গার প্রিন্ট এক্সেস করতেও খুব বেশি একটা সমস্যা হবেনা।

তাছাড়া স্মার্টফোনটিতে অন্যসকল রেগুলার যে সুবিধা পাবেন, সেগুলো হচ্ছে,

  • ওটিজি
  • ৪ জি কানেক্টিভিটি
  • ব্লুটুথ ভার্সন ৫
  • এন্ড্রয়েড ভার্সন ১০
  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর সহ ইত্যাদি!

স্পেশাল ফিচারস

পরিশেষে

আপনার নিজের জন্য বা আপনার কাছের কোন মানুষের অনলাইন ক্লাস, অনলাইন/ সোশ্যাল মিডিয়া সার্ফিং এর মত নিয়মিত কাজের জন্য যদি একটি রোবাস্ট স্মার্টফোন লাগে তবে নিঃসন্দেহে প্রিমো এনএফ৫ এর দিকে যেতে পারেন, এর ৪০০০ এমএএইচ ব্যাটারি ফোনটির লং টাইম রানের জন্যেও অনেক সুবিধা দিবে। আর বাজেটের ভেতর এতসব বান্ডেল ফিচারের সাথে একটি বিগ ডিসপ্লে পাওয়া যাচ্ছে, এটি সেই দিক থেকে অন্যসকল ডিভাইস এর তুলনায় অনেক বেশি প্রতিযোগী!

Leave a Reply