বাংলাদেশে উৎপাদন শুরু হওয়ার পর প্রথম কয়েকটি ডিভাইসে রিয়েলমি যেরকম চমক দেখিয়েছিলো, পরের ডিভাইসগুলো মোটেও ততটা আকর্ষণীয় হয়নি, সমালোচনাও হয়েছে বেশ। তারপরও তারা সেখান থেকে সরে না এসে একই ধরণের ফোন এনে চলেছে। এবারও realme 7i এর মাধ্যমে উচ্চ বাজেটে HD+ IPS প্যানেল আর নট দ্যাট গ্রেট চিপসেটের ধারা তারা অব্যহত রাখলো।

realme 7i এর দাম রাখা হয়েছে ১৯ হাজার টাকা। দাম দেখার পর আমি বুঝে পাচ্ছিনা কোন বিশেষণে এটাকে বিশেষায়িত করা যায়। এই দামকে জাস্টিফাই করার সুযোগ আছে বটে, 8GB র‍্যাম, 64MP সহ কোয়াড ক্যামেরা সেটআপ, 90Hz ডিসপ্লে নিয়ে এই দাম হবেই বা না কেন… কিন্তু প্রশ্ন তো থেকে যায় SD662 এর সাথে 8GB র‍্যাম দিয়ে কী হবে? 60Hz সমর্থিত চিপসেটে HD+ রেজ্যুলেশনের সাথে 90Hz দিয়ে কী-ই বা লাভ আছে? 2MP করে B&W আর ম্যাক্রো লেন্স না থাকলে কি খুব বড় ক্ষতি হত? জানি না!

আমার অন্য লেখাগুলোর মতই এখানে স্পেক নিয়ে আলোচনা হবে। এটি কোন হ্যান্ডস অন রিভিউ না, আমার অপিনিয়ন শেয়ার করছি শুধু। বাস্তব অভিজ্ঞতা কিছুটা ভিন্ন হতেও পারে।

রিয়েলমি আসলে এখন মনে করিয়ে দিচ্ছি শত হোক, তারা ওপ্পোরই সাবব্র্যান্ড (যদিও খাতা-কলমে স্বাধীন ব্র্যান্ড)। বেশি র‍্যাম, সুন্দর ডিজাইন, বিউটি ক্যামেরার দিকেই তারা এখন ছুটছে। একটা সময়ে পারফর্মেন্স সেন্ট্রিক বাজেট ফোন আনা রিয়েলমি আর এখনকার রিয়েলমির তফাৎটা বেশ আছে…

realme 7i এর সবচেয়ে বড় আকর্ষণ হলো ক্যামেরা, এখানে 64MP প্রাইমারী সেন্সর থাকছে, তাই অন্তত কাগজে-কলমের মেগাপিক্সেল যুদ্ধে ভালোভাবেই এডভান্টেজ পাচ্ছে 7i। আরো তিনটি ক্যামেরা আছে, যার একটি 8MP আল্ট্রাওয়াইড। বাকি দুটি ক্যামেরা হলো 2MP করে B&W ও ম্যাক্রো লেন্স। সেলফি ক্যামেরাটি 16MP।

B&W বা সাদাকালো সেন্সরের কাজ কি জানতে চেয়ে লজ্জা দিবেন না, তবে এর সবচেয়ে বড় কাজ সম্ভবত ক্যামেরার সংখ্যা বাড়ানো। 2MP ম্যাক্রো সেন্সরের বেলায়ও একই কথা বলা যায়। ভালো কথা, এখানে কোন ডেপথ সেন্সর নেই, অর্থাৎ খুব সম্ভব আল্ট্রাওয়াইড লেন্স দিয়ে পোট্রেট শট নেওয়া হবে।

এখানে রিয়েলমির এক্সক্লুসিভ AI ভিত্তিক UIS স্ট্যাবিলাইজেশন ফিচার থাকছে প্রাইমারি ও সেলফি ক্যামেরাতে, যা এই দামের মধ্যে আরেকটি ভালো ব্যাপার। সাথে আল্ট্রাওয়াইড ক্যামেরাতে থাকে UIS Max। সব মিলিয়ে কাগজে কলমের হিসেবে এটাকে ক্যামেরাতে জিপিএ-৫ দেওয়াই যায়।

ডিজাইনের কথা বললে প্লাস্টিকে তৈরি এই ফোনের ডিজাইন বেশ আকর্ষণীয় মনে হয়েছে। ক্যামেরা মডিউলটা আরেকটু সুন্দর হতে পারতো বলে মনে হয়েছে, realme C17 এবং অন্য কিছু ব্র্যান্ডের বেশ কিছু ডিভাইসে সেম ক্যামেরা মডিউল দেখা গেছে। তবে এর বাইরে এর ডিজাইন খুবই আকর্ষণীয়। দুটি কালারে এসেছে, Fusion Green ও Fusion Blue, আমার ব্যক্তিগত পছন্দ প্রথমটি।

তবে ডিসপ্লে সেকশনে এসে আমি ক্লান্তিবোধ করছি। 6.5″ HD+ IPS ডিসপ্লে দেখতে দেখতে ক্লান্ত হয়ে যাচ্ছি। এই ডিসপ্লেতে থাকছে পাঞ্চহোল কাটআউট, তবে চিন এরিয়া কিছুটা বড়। C17 এর মত এবারও তারা 90Hz প্যানেল দিয়েছে, যেটা ভালো ব্যাপার। তবে 90Hz থেকে FHD+ রেজ্যুলেশনটাই সম্ভবত এই দামে আগে চাওয়া থাকে, এমনকি যখন এর চিপসেট 90Hz এর জন্য পুরোপুরি ক্যাপাবল না। ব্যাটারীও থাকছে জাতীয় সাইজের 5000 mAh, তবে 18W ফাস্ট চার্জিং সাথে USB Type C পোর্ট আছে, এটা ভালো।

এবার চলে আসি চিপসেট সেকশনে, এখানে থাকছে Snapdragon 662। এটা SD665 এর প্রায় সেম, খুব মাইনর কিছু তফাৎ আছে। যে কোম্পানি ১৩ হাজারে 5i তে 665 দিয়েছিলোম তারা এবার ১৯ হাজারে 7i তে 662। তার সাথে দিয়েছে 8GB LPDDR4x র‍্যাম, বড় অদ্ভুত!

তবে সেন্সর সেকশনে এই ফোন হতাশ করেনি, যেমনটা ১৯ হাজারের একটা ফোনের করার কথাও না, জাইরোস্কোপ, ম্যাগনেটিক ইন্ডাকশন সেন্সর দুটোই থাকছে। আরো থাকছে লাইট, প্রক্সিমিটি, একসেলেরেশন সেন্সর। আর হ্যাঁ, ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরও আছে।

সামারাইজ করি, ক্যামেরা স্পেক বেশ দুর্দান্ত, আরো কিছু ব্যাপার ভালো। তবে realme 7i কোন ব্যালেন্সড ডিভাইস নয় একদমই। যদি বাকি সব ঠিক রেখে 4/128, FHD+ 60Hz ডিসপ্লেসহ ১৬০০০ টাকায় আনা হত, তাহলে Redmi 9 কিলার হতে পারতো। এরকম ডিভাইসে 8GB র‍্যাম দিয়ে দাম বাড়ানোর কোন মানে হয়!

নিয়নবাতি স্কোর ও অভিমত

  • ডিজাইন: ৫/৮
  • বিল্ড: ৪.৫/১০
  • ডিসপ্লে: ৪.৫/১২
  • ক্যামেরা: ১১/১৫
  • ব্যাটারী ও চার্জিং: ৫/১০
  • চিপসেট: ৮/২০
  • মেমোরি-স্টোরেজ: ১২/১৫
  • সেন্সর ও অন্যান্য: ৫/১০

মোট স্কোর: ৫৫

নিয়নবাতি স্কেলের কিছু সীমাবদ্ধতা অবশ্যই আছে। আমরা বিভিন্ন ক্যাটাগরীতে ভাগ করে পয়েন্ট দিই। ক্যামেরা আর মেমোরি-স্টোরেজ সেকশনে 7i-কে একটি ভালো স্কোর দিতে হয়েছে, যেকারণে ফোনটি মোট স্কোর খুব খারাপ হয়নি। আমাদের সাধারণ স্কোরিং সিস্টেমে ৫৪ অর্থ এই দামে ওকে।

তবে আমার বাস্তব অপিনিয়ন হলো, এটি এই দামে ভালো ডিল নয়। কেননা, SD662 এর সাথে 8GB র‍্যাম সম্ভবত বিশেষ কোন এডভান্টেজ দিবে না, এত দাম দিয়ে একটি ডিভাইস কিনবেন, অথচ FHD+ বা অ্যামোলেড ডিসপ্লে পাচ্ছেন না, এটা এই দামকে জাস্টিফাই করে না।

শুধুমাত্র ক্যামেরা যদি খুব বেশি প্রায়োরিটি থাকে, তাহলে এই ডিভাইসটি সাজেস্ট করা যায়। নাহলে এত খরচ না করে কিছুটা টাকা বাঁচান, Infinix Note 7, Redmi 9 এই ডিভাইসগুলো সম্ভবত এর থেকে ভালো ডিল হতে পারে। অথবা এই দামেই যদি নিতে চান, Galaxy M21 আছে, বেশ ব্যালেন্সড একটি ডিভাইস।

তথ্য ও ছবি সহায়তা

2 Comments

Leave a Reply